thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ অক্টোবর ২০২২, ২১ আশ্বিন ১৪২৯,  ১০ রবিউল আউয়াল 1444

হারাম খেলে, ঘুষ নিলে দেশের উন্নয়ন হবে না-মন্ত্রিপরিষদ সচিব

২০২২ সেপ্টেম্বর ১৮ ১৬:২৭:২১
হারাম খেলে, ঘুষ নিলে দেশের উন্নয়ন হবে না-মন্ত্রিপরিষদ সচিব

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক:মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) ঋণচুক্তির প্রক্রিয়া নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন । সরকারি কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেছেন, হারাম খেলে, ঘুষ নিলে দেশের উন্নয়ন হবে না।

রাজধানীর শেরে বাংলা নগরে আজ অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি) আয়োজিত ‘সুশাসন নিশ্চিতকরণে বৈদেশিক ঋণ ব্যবস্থাপনা’ শীর্ষক সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ইআরডি সচিব শরিফ খান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

হারাম খেলে, ঘুষ নিলে দেশের উন্নয়ন হবে না
উল্লেখ করে আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, কিছু কিছু প্রকল্প সমীক্ষা ছাড়াই একনেকে তোলা হয়। আপনারা এটা কীভাবে করেন। আপনারা এটা করতে পারেন না।

আনোয়ারুল ইসলাম আরও বলেন, ইআরডি আইন না মেনে ঋণ চুক্তি করেছে। এজন্যই প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় গলায় ফাঁসের মতো অবস্থা। ইআরডি চুক্তির প্রক্রিয়া সঠিকভাবে না বুঝলে এমসিসিআই এর সাবেক সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবিরের মতো ব্যক্তির সহায়তা নেওয়া যেতে পারে।

সেমিনারে বৈদেশিক ঋণের বিষয়ে ইআরডির অতিরিক্ত সচিব (বিশ্বব্যাংক) আবদুল বাকি উপস্থাপন করছিলেন। আবদুল বাকির কথায় দ্বিমত পোষণ করে এক পর্যায়ে খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, তোমাদের বৈদেশিক ঋণচুক্তি প্রক্রিয়ার বিষয় জানতে চাই।

এ সময় উপযুক্ত জবাব না দেওয়াতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মন্ত্রীপরিষদ সচিব। খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, এখান থেকেই প্রকল্পগুলোতে ৭০ থেকে ৮০ কোটি টাকার অনিয়ম সৃষ্টি হয়। যার ফলে ঋণদাতারা তাদের নিজের মতো করে অন্যান্য কাজ করে। এরজন্য প্রকল্পগুলোতে ব্যয় বৃদ্ধি এবং ক্রয়ের ক্ষেত্রে অনিয়ম ও সময় বৃদ্ধি পায়।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ইআরডির বৈদেশিক ঋণ চুক্তি সাংঘর্ষিক। ভেরি ফ্রিকুয়েন্টলি এটা হচ্ছে। ইআরডি রাত সাড়ে ১২টার সময় চুক্তি সই করল। এই বিষয়ে কেউ যদি আপত্তি করে মামলা করে তাহলে একজনও বাঁচতে পারবে না। ইআরডি এমনভাবে ঋণ চুক্তি করে বিষয়টা এমন আমি ঘুষ খাইছি কেউ প্রমাণ করতে পারবে না। ইআরডি এগুলো কীভাবে সাইন করে বলেও প্রশ্ন রাখেন তিনি!

কীভাবে আইনের সহায়তা নেয় ইআরডি তা জানতে চাইলে আব্দুল বাকি বলেন, পরামর্শ নেওয়া হয় আইন মন্ত্রণালয় থেকে।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, দেশের উন্নয়ন করতে চরিত্র ঠিক করতে হবে, না হয় কোনো কাজ হবে না। পুরো পৃথিবীর মানুষ গবেষণা করে ঠিক করেছে দুর্নীতি দূর করতে চরিত্র ঠিক করতে হবে। ক্যামব্রিজ, হার্ভাডের বড় বড় পণ্ডিত একসঙ্গে বসে ঠিক করেছে গুড গভর্নেন্স না করলে উন্নয়ন সম্ভব না।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

SMS Alert

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর