thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৮ মে 24, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,  ২০ জিলকদ  1445

টেলিযোগাযোগ খাতের কোম্পানিগুলো ভালো করছে

২০২৩ মে ২০ ১৩:২৯:২৩
টেলিযোগাযোগ খাতের কোম্পানিগুলো ভালো করছে

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক:দেশের শেয়ার বাজার ভাল অবস্থানে না থাকলেও সুসময় পার করছে তালিকাভুক্ত টেলিযোগাযোগ কোম্পানিগুলো। চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিক ব্যবসায়িকভাবে ভালো করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত টেলিযোগাযোগ খাতের কোম্পানিগুলোর। এ সময়ে আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় কোম্পানিগুলোর আয় বেড়েছে।চতালিকাভুক্ত টেলিযোগাযোগ খাতের কোম্পানির সংখ্যা তিন।

কোম্পানিগুলো হলো বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল), গ্রামীণফোন লিমিটেড ও রবি আজিয়াটা লিমিটেড। এর মধ্যে বিএসসিসিএলের হিসাব বছর গণনা করা হয় জুলাই-জুন সময়ে এবং বহুজাতিক কোম্পানি গ্রামীণফোন ও রবির হিসাব বছর গণনা করা হয় জানুয়ারি-ডিসেম্বর সময়ে।

বাংলাদেশসাবমেরিনকেবলকোম্পানিলিমিটেড

চলতি বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে টেলিযোগাযোগ খাতের রাষ্ট্রায়ত্ত কোম্পানি বিএসসিসিএলের মোট আয় হয়েছে ১২৭ কোটি টাকা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ১১৫ কোটি টাকা। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ১২ কোটি টাকা বা ৯ দশমিক ৭৪ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে প্রায় ৬৬ কোটি টাকা, আগের বছরের একই সময়ে যা ছিল ৬৬ কোটি টাকার বেশি। এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির নিট মুনাফা কমেছে শূন্য দশমিক ৭৯ শতাংশ। আলোচ্য প্রান্তিকে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪ টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা হয়েছিল ৪ টাকা ৩ পয়সা।

এদিকে চলতি ২০২২-২৩ হিসাব বছরের প্রথম তিন প্রান্তিকে (জুলাই-মার্চ) বিএসসিসিএলের মোট আয় হয়েছে ৩৮৮ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৩১৮ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ৭০ কোটি টাকা বা ২২ দশমিক ১২ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফা বেড়েছে ২০৯ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ১৭৯ কোটি টাকা। সে হিসাবে বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির নিট মুনাফা বেড়েছে ৩০ কোটি টাকা বা ১৬ দশমিক ৭২ শতাংশ। সর্বশেষ তিন প্রান্তিকে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১১ টাকা ৬৫ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৯ টাকা ৯৮ পয়সা।

গ্রামীণফোন

টেলিনর গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনের চলতি ২০২৩ হিসাব বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে মোট আয় হয়েছে ৩ হাজার ৭৩৫ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৩ হাজার ৬৩৪ কোটি টাকা। সে হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে বহুজাতিক কোম্পানিটির আয় বেড়েছে ১০১ কোটি টাকা বা ২ দশমিক ৭৯ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির আর্থিক ব্যয় হয়েছে ১২৪ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা হয়েছিল ৭৫ কোটি টাকা। সে হিসাবে বছরের ব্যবধানে আলোচ্য প্রান্তিকে কোম্পানিটির আর্থিক ব্যয় বেড়েছে ৪৯ কোটি টাকা বা ৬৫ দশমিক শূন্য ৬ শতাংশ। মূলত এ আর্থিক ব্যয় বৃদ্ধির কারণে কোম্পানির কর-পরবর্তী নিট মুনাফায় নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। আলোচ্য প্রান্তিকে কোম্পানিটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ৭৭৯ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৮০৯ কোটি টাকা। সে হিসাবে বছরের বছরের ব্যবধানে আলোচ্য প্রান্তিকে কোম্পানির নিট মুনাফা কমেছে ৩০ কোটি টাকা বা ৩ দশমিক ৭২ শতাংশ। এ সময়ে কোম্পানির ইপিএস হয়েছে ৫ টাকা ৭৭ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৬ টাকা।

রবিআজিয়াটা

তালিকাভু ক্ত টেলিযোগাযোগ খাতের আরেক বহুজাতিক কোম্পানি রবি আজিয়াটার চলতি হিসাব বছরের জানুয়ারি-মার্চ প্রান্তিকে সমন্বিত আয় হয়েছে ২ হাজার ৩৪৮ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ২ হাজার ১৯ কোটি টাকা। সে হিসাবে বছরের ব্যধানের কোম্পানিটির সমন্বিত আয় বেড়েছে ৩২৯ কোটি টাকা বা ১৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির সমন্বিত কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ৪২ কোটি টাকা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল ৪০ কোটি টাকা। এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির সমন্বিত নিট মুনাফা বেড়েছে ২ কোটি টাকা বা ৫ দশমিক ৫১ শতাংশ। চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে কোম্পানিটির সমন্বিত ইপিএস হয়েছে ৮ পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়েও যা ছিল ৮ পয়সা।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

SMS Alert

বিশেষ সংবাদ এর সর্বশেষ খবর

বিশেষ সংবাদ - এর সব খবর