thereport24.com
ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১, ২২ বৈশাখ ১৪২৮,  ২৪ রমজান ১৪৪২

মুরগি ও ডিমের দাম বাড়তি, বেগুনের দাম ১০০!

২০২১ এপ্রিল ১৬ ১৪:৫৯:৫৬
মুরগি ও ডিমের দাম বাড়তি, বেগুনের দাম ১০০!

দ্য রিপোর্ট প্রতিবেদক: রোজা ও লকডাউনের অজুহাতে আবারও বেড়েছে মুরগি ও ডিমের দাম। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিমের দাম হালিপ্রতি বেড়েছে পাঁচ টাকা। আর লেয়ার এবং দেশি মুরগির দাম বেড়েছে কেজিতে ২০-৪০ টাকা পর্যন্ত।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ‘লকডাউনের’ কারণে মুরগি ও ডিমের সরবরাহ কমেছে, তাই দাম বেড়ে গেছে। ‘লকডাউন’ শেষে দাম কমতে পারে বলে জানিয়েছেন তারা।

এদিকে, বাড়তি দামের ধারাবাহিকতায় বেগুনের দাম গিয়ে দাঁড়িয়েছে ১০০ টাকায়!

বাড্ডা এলাকার কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহে ২৮ টাকা হালিতে বিক্রি হওয়া ফার্মের মুরগির ডিম এখন বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৫ টাকা হালিতে। অর্থাৎ হালিতে দাম বেড়েছে পাঁচ টাকার বেশি। আর ৮৪ টাকায় বিক্রি হওয়া এক ডজন ডিম এখন বিক্রি হচ্ছে ৯০-৯৫ টাকায়।

বাড্ডার বাজারগুলোতে ব্রয়লার মুরগি ১৬০-১৬৫ টাকা কেজিতে কেনাবেচা হচ্ছে। গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছিল ১৫০-১৫৫ টাকা কেজিতে। সপ্তাহের ব্যবধানে দাম ৫-১০ টাকা বেড়েছে। তবে বেশি দাম বেড়েছে লেয়ার মুরগির। রোজার আগেও ১৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া লেয়ার মুরগি এখন বিক্রি হচ্ছে ২০০-২১০ টাকা কেজি দরে। আর পাকিস্তানি কক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৩০-২৫০ টাকা কেজিতে।

এছাড়া সোনালী কক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৩৫০টাকা কেজি দরে। অথচ রোজার আগেও এ মুরগি বিক্রি হয়েছে ২৮০-৩২০ টাকা কেজিতে। অন্যদিকে ৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে দেশি মুরগি, যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছিল ৪৫০-৪৮০ টাকা কেজিতে।

মুরগির পাশাপাশি বাজারগুলোতে গরুর মাংস ৫৮০ থেকে ৬০০ টাকা এবং খাসির মাংস বিক্রি হচ্ছে ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকা কেজিতে। আবারও কোথাও কোথাও বিক্রি হচ্ছে ১০০০ টাকা কেজি দরে।

শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) সকালে রাজধানীর মিরপুরের মুসলিম বাজার, ১১ নম্বর বাজার, মিরপুর কালশী বাজার ও পল্লবী এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি বেগুন বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকায়, গাজর ৩০ থেকে ৪০ টাকা, শিম ৩০ থেকে ৪০ টাকা, করলা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, মুলা ৪০ টাকা, ঢেঁড়শ ৫০ থেকে ৬০ টাকা, টমেটো ৩০ থেকে ৪০ টাকা, বরবটি ৬০ টাকা। এছাড়া প্রতি পিস লাউ আকারভেদে বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়, মিষ্টি কুমড়ার কেজি ২০ থেকে ৩০ টাকা, চিচিঙ্গা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, পটল ৫০ থেকে ৬০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, সাজনা ৫০ থেকে ৬০ টাকা, আলু বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা কেজি। প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়।

কাঁচা কলার হালি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায়। কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি দরে। পেঁপে প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩০-৪০ টাকা। খিরা ৫০ টাকা। শসার দাম ৪০ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকায়। মটরশুঁটির কেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকা। লেবুর দাম বেড়ে হালি বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকায়।

এছাড়াও শুকনা মরিচ প্রতি কেজি ২০০ টাকা, রসুনের কেজি ৮০ থেকে ১২০ টাকা, আদা ৮০ থেকে ১০০ টাকা। হলুদ ১৮০ টাকা থেকে ২৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বাজারে প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৭০ টাকায়। প্রতি কেজি বিআর-২৮ চাল বিক্রি হচ্ছে ৪৫ থেকে ৪৮ টাকা, মিনিকেট ৬৫ টাকা, নাজির ৬৫ থেকে ৭০ টাকা, স্বর্ণা চাল ৪৮ থেকে ৫০ টাকা, পোলাও চাল ৯০ থেকে ১০০ টাকা। খোলা ভোজ্যতেলর লিটার বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ থেকে ১৩৯ টাকা।

এক ডজন লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকায়। হাঁসের ডিমের দাম কমে ডজন এখন ১৩৫ টাকা। দেশি মুরগির ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকা।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/১৬ এপ্রিল, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

অর্থ ও বাণিজ্য এর সর্বশেষ খবর

অর্থ ও বাণিজ্য - এর সব খবর