thereport24.com
ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮,  ২৯ রমজান ১৪৪২

করোনার ঘরোয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত পরামর্শ

২০২১ এপ্রিল ১০ ১০:৫০:৫০
করোনার ঘরোয়া চিকিৎসা সংক্রান্ত পরামর্শ

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক: বাসায় বসে কভিড-১৯ এর মৃদুও মাঝারি মাত্রার সংক্রমনের চিকিৎসা ব্যবস্থাপনার বিশদ নিম্নরূপঃ

করোনা মূলতঃ সংক্রমণের মাত্রার উপর নির্ভর করে কভিডের রোগীকে মৃদু (Mild), মাঝারী (Moderate), তীব্র (Severe) ও সংকটাপন্ন ( Critical) রোগী - এ চার ভাগে ভাগ করে কভিডের উপসর্গ ভিত্তিক চিকিৎসা দেয়া যেতে পারে। মৃদু (mild) থেকে মাঝারি (moderate) মাত্রার কভিডের রোগীদের বাসায় এবং তীব্র (severe) থেকে সংকটাপন্ন ( Critical) মাত্রার সংক্রমণের রোগীদের আইসিইউ সাপোর্ট সম্বলিত হাসপাতালে চিকিৎসা করার প্রয়োজন হয়।
তাই শুধু বাসায় রেখে কভিডের চিকিৎসা দিতে গেলে রোগের মাত্রা বুঝার জন্য বাসায় রোগীর জ্বর ও অক্সিজেনের মাত্রা মাপার জন্য একটি থার্মোমিটার ও একটি পোর্টেবল পালস অক্সিমিটার নিজ সংগ্রহে রাখতে হয়।

(ক) কভিডের মৃদু (Mild cases) সংক্রমনের চিকিৎসাঃ
** লক্ষণঃ জ্বর, কাশি, গলা ব্যথা, শরীর ব্যথা, দূর্বলতা, স্বাদ/গন্ধ না পাওয়া, কখন কখন পাতলা পায়খানা অথবা শুধু ইনফ্লুয়েঞ্জা এর মত লক্ষন হতে পারে।
** চিকিৎসাঃ
(১) Tab. Ivermactine (06 mg) ০৩ টি ট্যাবলেট ( সর্বমোট ১৮ মিগ্রাঃ) প্রথম দিন এক সাথে এক বারেই খালি পেটে খেতে হবে। এরপর আর খেতে হবে না। ১০ বছর এর অধিক বয়সী সবাই এই ডোজে ঔষধটি খেতে পারেন। এক বছরের বেশী বয়সী বাচ্চাদের Tab. Ivermactine ০.১৫-০.২০ মিগ্রাঃ/কেজি ওজন হিসাবে মাত্র একবার খাওয়াতে হবে।
(২) Cap. Doxycycline 100 mg প্রতিদিন ০১ টি ক্যাপসুল দৈনিক ০২ বার করে মোট ০৫ দিনে ১০ টি ক্যাপসুল খেতে হবে। খালি পেটে খেলে ভাল হয়। ১০ বছর থেকে শুরু করে এই ডোজেই ঔষধটি সবাই খেতে পারেন। ১০ বছরের চেয়ে ছোট বাচ্চাদের Cap. Doxycycline পরিবর্তে Cap Azythromycin 250 mg দিনে একবার করে ০৫ দিন অথবা ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে Syrp. Azythromycin 10 mg/kg ওজন হিসাব করে দিনে একবার করে ০৫ দিন খাওয়াবেন।

(খ) কভিডের মাঝারি মাত্রার সংক্রমণের চিকিৎসাঃ
**লক্ষণঃ উপরে উল্লেখিত মৃদু মাত্রার সংক্রমণ এর সংগে যদি অক্সিজেনের ঘাটতিজনিত শ্বাস কষ্ট ( অক্সিজেন সেচুরেশন ৯৪% এর নীচে হলে) যোগ হয়, তখন বুঝতে হবে কভিড মৃদু মাত্রা থেকে মাঝারি মাত্রার সংক্রমনে পরিনত হয়েছে এবং অনতিবিলম্বে নিম্নের চিকিৎসা শুরু করতে হবে।
** চিকিৎসাঃ
অনতিবিলম্বে হাসপাতালে ভর্তি সহ চিকিৎসক এর শরনাপন্ন হতে হবে। কিন্তু কোন কারণে যদি হাসপাতালে ভর্তি বিলম্বিত হয় তবে কভিড যাতে তীব্র (Severe) ও সংকটাপন্ন ( Critical) সংক্রমণে পরিনত না হয়, তাই কভিডের নিম্নলিখিত চিকিৎসা ধারাবাহিক ভাবে চালিয়ে যেতে হবেঃ
(১) Tab. Ivermactin ০৬ মিঃগ্রাঃ এর ০২ টি ট্যাবলেট দিনে একবার করে রোগের সংক্রমনের মাত্রা অনুযায়ীঃ
- মাঝারি সংক্রমণে ০৩ দিন
- তীব্র সংক্রমণে ০৫ দিন
- সংকটাপন্ন সংক্রমণে ০৭ দিন পর্যন্ত নিরাপদে খাওয়ানো যেতে পারে।
(২) Tab. Dexamethasone 0.5 mg (Dexonex)ঃ
৪+৪+৪ x ০৫ দিন,
২+২+২ x ০৩ দিন
১+১+১ x ০৩ দিন, তারপর বন্ধ।
অথবা
Tab. Methylprednisolone 08 mg (Methigic 8/ Methipred 8)ঃ এটি খেতে হবে-
২+০+১ x ০৫ দিন
১+০+১ x ০৩ দিন
১+০+০ x ০৩ দিন, তারপর বন্ধ।

(৩) Tab. Rivaroxaban 10 mg ( RivaXa 10 / Rivaban 10)ঃ প্রতিদিন ০১ টি ট্যাবলেট ভরা পেটে খেতে হবে x ০১ মাস
(৪) সংগে যদি জ্বর থাকে, তবে অতিরিক্ত ঃ
Tab. Azithromycin 500 mg (Zimax 500/ Azithrocin 500)ঃ প্রতিদিন ০১ টি ট্যাবলেট ভরা পেটে খেতে হবে x ০৫ দিন।
(৫) Tab. Melatonin 06 mg ( Filfresh) ঃ রাতে কভিডের কারনে ঘুমের সমস্যা হলে প্রতিদিন সন্ধ্যা ০৬০০ টায় ০১ টি ট্যাবলেট খেতে হবে।
(৬)Tab. Mucomist DT ০+১+০
কাশি বেশি হলে খাবেন
(৭) Tab. Colchicine 0.6 mg/ Colimax ১+০+১ হিসাবে ০৭-১০ দিন খাবেন।

(গ) ইদানিং দেখা যাচ্ছে যে, কভিডে আক্রান্ত রোগীরা উপরে উল্লেখিত সর্দিকাশি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট ছাড়া ও বমি এবং ঘন ঘন পাতলা পায়খানার ( GI symptoms) এর উপসর্গ নিয়ে আসছেন। এ ধরনের কভিড-১৯ রোগীর জন্যঃ
(১) Tab. Nitazoxanide 500 mg (Zox 500 mg) ০১ টি করে দৈনিক ০২ বার হিসাবে ০৫ দিন অথবা ০৩ টি ট্যাব শুধু একবার খেতে হবে। ১২ বছর থেকে সবাই এই ডোজে খাবেন।
বাচ্চাদের ক্ষেত্রেঃ
** ০১-০৩ বছর বয়সী বাচ্চাদের জন্য ১০০ মিগ্রা সিরাপ (০৫ মিলি) দৈনিক ০২ বার ও
** ০৪-১১ বছরের বাচ্চাদের জন্য ২০০ মিগ্রা (১০ মিলি) দৈনিক ০২ বার খেতে হবে।
(২) Tab. Azithromycin 500 mg (Azyth 500) দৈনিক ০১ টি করে ০৫ দিন খাবেন।
** ১০ বছরের নীচের বাচ্চাদের জন্য ২৫০ মিগ্রা এর দৈনিক ০১ টি ট্যাবলেট খেতে হবে।
** ছোট বাচ্চাদের জন্য এই ঔষধটি ১০ মিগ্রা/কেজি হিসাবে দৈনিক একবার করে ০৫ দিন

লেখক- ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাসুদ মজুমদার

উপদেষ্টা বিশেষজ্ঞ ( ক্রিটিকাল কেয়ার মেডিসিন),
সিনিয়র ইন্টেন্সিভিস্ট ও বিভাগীয় প্রধান,
ক্রিটিকাল কেয়ার সেন্টার এবং
ইমার্জেন্সি-ক্যাজুয়ালটি সেন্টার,
সি এম এইচ, ঢাকা সেনানিবাস।

(দ্য রিপোর্ট/আরজেড/১০ এপ্রিল, ২০২১)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ খবর

স্বাস্থ্য - এর সব খবর