thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭, ১ পৌষ ১৪২৪,  ২৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯

ভারতের অক্সিজেন সিলিন্ডার সংকটে ৬০ শিশুর মৃত্যু

২০১৭ আগস্ট ১৩ ১১:০৮:২০
ভারতের অক্সিজেন সিলিন্ডার সংকটে ৬০ শিশুর মৃত্যু

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক : ভারতের একটি সরকারি হাসপাতালে চরম অব্যবস্থাপনার মধ্যে ৬০টি শিশুর মৃত্যুর পর সেখানে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছে।

বলা হচ্ছে, হাসপাতালটি বিল পরিশোধ না করায় সেখানে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সব শিশু এ কারণেই মারা গেছে কি-না, তা পরিস্কার নয়। খবর- বিবিসির।

উত্তর প্রদেশ রাজ্যের কর্মকর্তারা স্বীকার করছেন যে, এই হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়ার পর সেখানে সংকট তৈরি হয়েছিল। কিন্তু এর কারণে কোন শিশুর মৃত্যুর কথা তারা অস্বীকার করছেন।

স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, রোগীদের আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে এসময় আতংক ছড়িয়ে পড়েছিল।

মারা যাওয়া বেশিরভাগ শিশু হয় নবজাতক বা এনসেফালাইটিসে ভুগছিল।

উত্তর প্রদেশের গোরখপুর জেলার বাবা রাঘব হাসপাতালে গত পাঁচ দিনে এই ৬০টি শিশু মারা যায়। এর মধ্যে তিরিশটি মৃত্যুর ঘটনা রেকর্ড করা হয় গত দুদিনে।

জেলার কর্মকর্তা অনিল কুমার স্বীকার করেন যে, হাসপাতালটিতে বিল পরিশোধ নিয়ে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে সমস্যা তৈরি হয়েছিল। তবে তিনি বলেন, হাসপাতালে অনেক রোগীকে যেহেতু গুরুতর অবস্থায় ভর্তি করা হয়েছিল, তাই অনেক মৃত্যু এমনিতেও ঘটতে পারতো।

উত্তর প্রদেশের গোরখপুর ভারতের সবচেয়ে দরিদ্র অঞ্চলগুলোর একটি।

রাজ্যের স্বাস্থ্য মন্ত্রীও এমন অভিযোগ নাকচ করে দিয়েছেন যে অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকটের কারণে এসব মৃত্যু ঘটেছে।

হাসপাতালটির অধ্যক্ষকে সাসপেন্ড করে দিয়ে এক তদন্ত শুরু করেছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর।

জেলাশাসক গতকালই সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন যে অক্সিজেন সরবরাহ না থাকায় মারা গেছে ওই শিশুগুলি।

তবে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর বলছে অন্য কারণও রয়েছে শিশুগুলি মারা যাওয়ার পেছনে। তবে কী সেই কারণ, তা নিয়ে একটি শব্দও বলা হচ্ছে না আনুষ্ঠানিকভাবে।

শনিবার সকালে ওই ওয়ার্ডগুলিতে গিয়ে বিবিসি-র সংবাদদাতা দেখেছেন যে, অনেক অভিভাবকই চিকিৎসা ব্যবস্থার অপ্রতুলতা নিয়ে অভিযোগ করছেন। আবার অনেকেই চোখের সামনেই বহু বাচ্চাকে মারা যেতে দেখেছেন। তবে একই সঙ্গে এটাও চোখে পড়েছে যে, কয়েকটি শিশুকে অক্সিজেন দেওয়া চলছিল।

(দ্য রিপোর্ট/এনটি/আগস্ট ১৩, ২০১৭)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

বিশ্ব এর সর্বশেষ খবর

বিশ্ব - এর সব খবর



রে