thereport24.com
ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ২৯ কার্তিক ১৪২৫,  ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় চট্টগ্রাম

২০১৮ মার্চ ২১ ১০:১৫:১২
প্রধানমন্ত্রীর অপেক্ষায় চট্টগ্রাম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার (২১ মার্চ) চট্টগ্রাম আসছেন। তাকে স্বাগত জানাতে এবং আওয়ামী লীগের সমাবেশ সফল করতে প্রশাসন ও দলের পক্ষ থেকে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। দিনব্যাপী সফরে ৪১টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতির আগমন উপলক্ষে চট্টগ্রামে উৎসবের আমেজ দেখা দিয়েছে। চলছে শো ডাউন। আগামী নির্বাচনে দলের মনোনয়ন নিশ্চিত করতে অনেক নেতারা ব্যস্ত দলীয় প্রধান ও জনগণের দৃষ্টি আকর্ষণে। নিজেদের সাংগঠনিক ক্ষমতা-জনপ্রিয়তাও দেখানোর চেষ্টা করছেন তারা।

বুধবার (২১ মার্চ) সকালে চট্টগ্রামের বিএনএ এবং ঈসা খান প্যারেড গ্রাউন্ডে বিএন ডকইয়ার্ডকে ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড (জাতীয় পতাকা) প্রদান এবং বঙ্গবন্ধু কমপ্লেক্স এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী।

এরপর চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োগিত জনসভায় বক্তব্য দেবেন। পটিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত জনসভার আগে চট্টগ্রামবাসীকে উপহার দেবেন ৪১টি উন্নয়ন প্রকল্প।

পাশাপাশি ভোট চাইবেন নৌকার জন্য। দলীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় ১৭ বছর পর পটিয়ায় শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে আয়োজিত জনসভায় প্রায় পাঁচ লাখ লোকের সমাগম হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের সম্মেলনের স্টেজের আদলে পটিয়ায় প্রধানমন্ত্রীর জনসভার স্টেজ নির্মাণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পটিয়ার সংসদ সদস্য শামসুল হক চৌধুরী। নৌকার আকৃতির ৮০ ফুট দীর্ঘ ও ৩২ ফুট প্রস্থের মঞ্চ তৈরির কাজও প্রায় শেষ দিকে বলে তিনি জানান।

প্রধানমন্ত্রীর সফরকে ঘিরে স্থানীয় আওয়ামী লীগের পরিকল্পনার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা এলইডি প্রজেক্টরের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর সারাদেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, বিশেষ করে পদ্মা সেতু, কর্ণফুলী টানেল, মাতারবাড়ি এলএনজি টার্মিনাল, সারা দেশে বিদ্যুতায়ন, ঢাকা-চট্টগ্রাম ফোর লেন সড়কসহ বড় বড় প্রজেক্টগুলোর চিত্র তুলে ধরবো। এছাড়া পটিয়ার খেটে খাওয়া মানুষগুলো আগের থেকে যে শান্তিতে আছে সেটি তুলে ধরা হবে।’

যে প্রকল্পগুলো উদ্বোধন করা হবে সেগুলো হলো- ছয় কিলোমিটার আখতারুজামান চৌধুরী ফ্লাইওভার, চট্টগ্রাম মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমপ্লেক্স ভবন, কালুরঘাট-মুন্সিরটেক ন্যাশনাল হাইওয়ে, মিলিটারি পুল, পটিয়া-চন্দনাইশ বৈলতলী সড়ক, খোদারহাট সেতু, নাজিরহাট-মাইজভান্ডার সড়ক এবং শেখ রাসেল ভাস্কর্য, শেখ রাসেল মঞ্চ, বাংলাদেশ মহিলা সমিতি স্কুল এন্ড কলেজের চারতলা একাডেমিক ভবন, হাজেরা-তজু স্কুল এন্ড কলেজ, বাঁশখালী উপকুলীয় ডিগ্রি কলেজ, হোয়াকো বনানী কলেজ এবং অধ্যাপক কামাল উদ্দিন চৌধুরী ডিগ্রি কলেজ।

যে প্রকল্পগুলোর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন- ১৬ কিলোমিটারের লালখান বাজার-শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, আট কিলোমিটার কালুরঘাট-শাহ আমানত সেতু বাঁধ কাম সড়ক, নগরীর খাল পুনঃখনন ও সংস্কার, সাঙ্গু নদীর উভয় পাশের রিজার্ভেশন, সদরঘাট থেকে বাকলিয়া পর্যন্ত কর্ণফুলী নদীর ড্রেজিং, বিভিন্ন এলাকায় আটটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, কালারপুল সেতু নির্মাণ, কেরানীহাট-সাতকানিয়া সড়কের সম্প্রসারণ, পটিয়া-আনোয়ারা-বাঁশখালী সড়ক, বড়তাকিয়া থেকে মিরসরাই ইকোনোমিক জোন সড়ক, হোয়াকো-নারায়ণহাট-ফটিকছড়ি মহাসড়ক, নাজিরহাট-কাজীরহাট সড়ক সম্প্রসারণ, পটিয়া শ্রীমাই খালে আর.সি.সি গ্রেডার সেতু, মন্দাকিনি খালে আর.সি.সি গ্রেডার সেতু, পটিয়া পিটিআই’র একাডেমিক ভবন, সীতাকুন্ড স্কুল এন্ড কলেজ, পোস্তারপাড় সিটি কর্পোরেশন মহিলা কলেজ, চট্টগ্রাম গার্লস কলেজ ও আগ্রাবাদ মহিলা কলেজের ডরমিটরি নির্মাণ, মুসলিম ইনস্টিটিউট কালচারাল কমপ্লেক্স নির্মাণ, পটিয়া বহুমুখী কাঁচাবাজার এবং পটিয়াতে হটিকালচার।

(দ্য রিপোর্ট/এনটি/মার্চ ২১, ২০১৮)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

জেলার খবর এর সর্বশেষ খবর

জেলার খবর - এর সব খবর