thereport24.com
ঢাকা, শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬,  ৭ রবিউস সানি 1441

শামির হ্যাটট্রিকে ভারতের মুখরক্ষা

২০১৯ জুন ২৩ ০০:০৫:২৮
শামির হ্যাটট্রিকে ভারতের মুখরক্ষা

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক : শেষের দিক লড়াইটা হয়ে পড়ে ভারতের অভিজ্ঞতা বনাম আফগান ব্যাটসম্যানদের সামর্থ্যের। লড়াইয়ে অভিজ্ঞতারই জয় হলো। আফগানিস্তানকে ১১ রানে হারিয়ে শেষ হাসিটা হাসলেন বিরাট কোহলিই। তবে ম্যাচে হারলেও আফগানিস্তানের লড়াই ক্রিকেটপ্রেমীদের মন জয় করেছে।

পুরো ম্যাচ জুড়েই টিভি পর্দায় ভেসে আসছিল বিরাট কোহলির হতাশামাখা চেহারাটা। ব্যাটিংয়ের পর বোলিংয়েও পুরোটা সময় মুখ গোমড়া করে থাকেন ভারত অধিনায়ক। উইকেট পাওয়ার কয়েকবার লম্ফঝম্প করলেও বেশিক্ষণ স্থায়ী থাকেনি সেটা। শেষ ওভারে মোহাম্মদ নবীকে ফিরিয়ে দিয়ে অবশেষে হাসিটা স্থায়ী হয় ভারতীয় দলপতির।

ভারতের দেওয়া ২২৫ রানের জবাবে আফগানদের শুরুটা খুব একটা খারাপ হয়নি। উদ্বোধনী জুটিতে আসে ২০ রান। লক্ষ্য ও উইকেটের বিচারে সেটা নেহায়েতই কম নয়। প্রথম ভুলটা করেন হযরতুল্লাহ জাজাই। মোহাম্মদ শামিকে তেড়েফুড়ে মারতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে আসেন আফগান ওপেনার।

এরপর অবশ্য ৪৪ রানের জুটি বেধে ভারতীয়দের চাপে রাখেন অধিনায়ক গুলবদিন নাইব ও রহমত শাহ। ১৭তম ওভারে হার্দিক পান্ডিয়াকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে আউট হন গুলবদিন। ৪২ বলে ২৭ রান করেন আফগান অধিনায়ক।

উইকেট পেলেও কোনোভাবেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারছিল না ভারত। তবে কোহলিকে ম্যাচে ফেরান ভারতের প্রধান বোলিং অস্ত্র জাসপ্রিত বুমরাহ। এই পেসার এক ওভারেই তুলে নেন আফগানদের হাশমতুল্লাহ শাহিদী ও রহমত শাহকে।

দলীয় ১৩০ রানে আজগর আফগানকে বোল্ড করেন যুবেন্দ্র চাহাল। এরপর নজিবুল্লাহ জাদরানকে নিয়ে লড়াই শুরু করেন মোহাম্মদ নবী। ২৩ বলে ২১ রান করে জাদরান ফিরলেও নবী আফগানদের সাহস যোগাচ্ছিলেন।

রশীদ খানকে সাথে নিয়ে যোগ করেন মূল্যবান ৩৪ রান। ১৬ বলে ১৪ রান করেন রশীদ খান। আফগানরা যখন ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ প্রায় নিয়েই নিয়েছে ঠিক তখনই ভারতকে ম্যাচে ফেরান চাহাল। ধোনি দারুণ এক স্টাম্পিং করে ভারতীয়দের মুখে হাসি ফোটান।

শেষের দিক একাই ম্যাচ জেতানোর দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন মোহাম্মদ নবী। তবে সতীর্থদের কাছ থেকে নুন্যতম সহায়তা না পাওয়ায় ম্যাচ হেরে বসে আফগানিস্তান। শেষ ওভারের শেষ তিন বলে তিন উইকেট তুলে নিয়ে হ্যাটট্রিক করেন পেসার মোহাম্মদ শামি। এক বল হাতে থাকতেই ২১৩ রানে শেষ হয় আফগানিস্তানের ইনিংস।

এর আগে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করতে নামা ভারতীয় দল করে ২২৪ রান। ভারতের রান যখন ৭, মুজিব উর দৃষ্টিনন্দনভাবে বোল্ড করেন আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা রোহিত শর্মাকে। এরপর ধীরে ৩০ রানের ইনিংস খেলে ফেরেন অপর ওপেনার কেএল রাহুল।

বিরাট কোহলি এবং বিজয় শঙ্করে আশা দেখছিল ভারত। কিন্তু ভালো খেলা বিজয় ২৯ রান করে আউন হন। অপর প্রান্তে থাকা কোহলিকে অবশ্য স্পিন দিয়ে কাবু করতে পারছিলেন না রশিদ খানরা। তবে ৬৩ বলে ৬৭ রান করার পরে শট খেলতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ক্যাচ দেন বিরাট।

ধোনি এবং কেদার যাদব কচ্ছপ গতির ব্যাটিং শুরু করলে ভারতের বড় রানের স্বপ্ন ভেঙে যায়। ৫২ বলে ২৮ রান করে ফিরে যান ধোনি। আজ কিছু করতে পারেননি হার্ডিক পান্ডিয়াও। কেদার যাদব করেন ৬৮ বলে ৫২ রান।

(দ্য রিপোর্ট/একেএমএম/জুন ২৩,২০১৯)

পাঠকের মতামত:

SMS Alert

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর